করোনা যুদ্ধে পুলিশের প্রথম শহীদ জসিম উদ্দিনের জানাজা সম্পন্ন

Print Friendly, PDF & Email

আইন সমাজ ডেক্স, ২৯ এপ্রিল ২০২০ বুধবার :

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণকারী শহীদ জসীম উদ্দিনের জানাজা বাংলাদেশ পুলিশ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সম্পন্ন হলো। ইতিমধ্যে লাশ নিয়ে পুলিশের একটি টিম মরহুমের বাড়ীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেছে।

স্বস্তির বিষয় এখানে যে, করোনার সংকটকালীন এই সময়ে লাশটা পরিবারের কাছে পৌছে দেয়াটাই পরিবারের জন্য বড় পাওয়া। তারা হয়তো লাশের মুখ দেখার সুযোগ পাবে না, তবে অন্তত দাফনের সময় বা দাফনের পরে কবরের পাশে দাঁড়িয়ে চোখের পানিটুকু ফেলতে পারবে!

ইচ্ছে হলে কবর যিয়ারতের সুযোগটুকু পাবে! বারবার কবরের কাছে ছুটে যেতে পারবে! পারিবারিক কবরস্থান হলে তো ঘরে বসেই বাবাহারা সন্তান বাবার কবরের দিকে তাকিয়ে থাকতে পারবে! বিধবা স্ত্রী হয়তো কিছুটা হলেও সান্ত্বনা খুঁজে পাবে!

যদি পরিবারকে না দিয়ে ঢাকার খিলগাঁও বা এমন কোন গোরস্থানে দাফন করা হতো, তাহলে হয়তো গ্রামের ভোলাভালা পরিবারগুলোর আর কোনদিন কবরটা দেখারও সুযোগ মিলতো না।

উল্লেখঃ ২৪ তারিখ তার করোনার উপসর্গ প্রকাশ পায়। গত ২৫ তারিখ আইইডিসিআর তার শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ছিলেন ফকিরাপুল আল সালাম হোটেলে। গতকাল রাতে তিনি মৃত্যুবরণ করেন (ইন্না… রাজিউন)। আজ ২৯ এপ্রিল সকালে আইইডিসিআর থেকে জানা যায় তিনি কোভিড-১৯ পজেটিভ ছিলেন।

তিনি বাংলাদেশ পুলিশের প্রথম শহীদ করোনা যোদ্ধা কনস্টেবল জসিম উদ্দিন (৩৯)। দুই কন্যা ও এক পুত্র সন্তানের জনক তিনি। কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলায় তার গ্রামের বাড়ি। রাজধানীর ওয়ারীর একটি ফাঁড়িতে কর্মরত ছিলেন। খুব করে কাঁদতে ইচ্ছে হচ্ছে। ক্ষমা করে দিও ভাই আমাদের এ ব্যর্থতাকে। আমরা তোমাকে বাঁচাতে পারলাম না। আল্লাহ তোমাকে শহীদের মর্যাদা দান করুক এ প্রার্থনা র‌ইলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *